আজ থেকে অনুশীলন শুরু করছে নয়জন ক্রিকেটার

চার মাসের যন্ত্রণাদায়ক বিরতি শেষে, আজ থেকে ক্রিকেটীয় কার্যক্রমে ফিরছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা। পুরো দেশজুড়ে চারটি ভেন্যুতে সীমিত আকারে অনুশীলন শুরু হবে।
ব্যক্তিগত অনুশীলনে নামবেন মোট নয় খেলোয়াড়।
বোর্ড নিশ্চিত করেছে কারা অনুশীলন করবেন। তারা হলেন- মুশফিকুর রহিম, ইমরুল কায়েস, শফিউল ইসলাম, মোহাম্মদ মিথুন, মাহাদি হাসান, নুরুল হাসান সোহান, নাসুম আহমেদ, নাইম হাসান ও সৈয়দ খালেদ। এই নয়জন খেলোয়াড় বিসিবির নিয়ম মেনে বিভিন্ন ভেন্যুতে অনুশীলন শুরু করবেন।
চার ভেন্যুাহলো- মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়াম, সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম ও খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়াম।
খেলোয়াড়দের আগামী সাত দিনের অনুশীলনের সময়ও প্রকাশ করেছে বিসিবি। সকল খেলোয়াড় বিভিন্ন সময়ে ব্যক্তিগতভাবে অনুশীলন করবে এবং ইনডোরে শুধুমাত্র ব্যাটিং করা যাবে ও জিমে দৌঁড়ানো যাবে।
মিরপুরে ইনডোরে ব্যাটিং করার সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে সিলেট, খুলনা ও চট্টগ্রামে কার্যক্রম সীমাবদ্ধ থাকবে। ঐস্থানগুলোতে শুধুমাত্র দৌঁড়ানো ও জিম করা যাবে।
মিরপুরে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অনুশীলন করবে ব্যাটসম্যান মিথুন, উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ও পেসার শফিউল ইসলাম। আগামী সোমবার থেকে এই ভেন্যুতে অনুশীলন শুরু করবেন ইমরুল।
সিলেটে অনুশীলন করবেন পেসার খালেদ ও বাঁ-হাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ। খুলনায় ঘাম ঝড়াবেন অলরাউন্ডার মাহাদি ও উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান। চট্টগ্রামে অনুশীলনে নামবেন নাইম।
খেলোয়াড়দের জন্য সকল ভেন্যুতে সবধরনের সুবিধা তৈরি করা হয়েছে বলে জানালেন ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান আকরাম খান।
আজ বাসসকে আকরাম বলেন, ‘কাল থেকে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে খেলোয়াড়রা নিজেদের ব্যক্তিগত অনুশীলন শুরু করবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘সকলের জন্য আমরা ইতোমধ্যে অনুশীলন সূচি তৈরি করেছি। অনুশীলনে খেলোয়াড়দের সকল স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আমরা সীমিত আকারে প্রথম পর্বে ইনডোরে খেলোয়াড়দের জন্য ব্যাটিং ও দৌড়ানোর ব্যবস্থা করেছি। পরবর্তীতে আমরা বিভিন্ন ধরনের অনুশীলনের অনুমতি দেবো।’
আকরাম আরও জানান, আউটডোরে অনুশীলনের জন্য খেলোয়াড়দের এখনো উৎসাহিত করছেন না।
তিনি বলেন, ‘আমরা তাদের উৎসাহি করছি না, কারন ঝুঁকি এখনো রয়ে গেছে। কিন্তু খেলোয়াড়রা স্টেডিয়ামে অনুশীলন করতে আগ্রহী। তাই তাদের জন্য ভেন্যু খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’
করোনাভাইরাসের কারনে গেল মার্চের মাঝামাঝি থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেট কার্যক্রম স্থগিত হয়। এই মারাত্মক ভাইরাসটি পুরো দেশকে আটকে রেখেছিলো। বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাা ও বাঁ-হাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। তারা এখন পুরোপুরিভাবে সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

ফেসবুকে আমরা..