তুরাগে র‌্যাবের সঙ্গে গুলিবিনিময়ে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত, আগ্নেয়াস্ত্র ও ইয়াবা জব্দ

রাজধানী তুরাগ থানার দিয়াবাড়ি এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে গুলিবিনিময়ে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে ।তারা হচ্ছে- ইব্রাহিম খলিল (৪৫) ও ওমর ফারুক (৩৪)। এঘটনায় র‌্যাবের এক সদস্য আহত হয়েছেন।
বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে তুরাগ থানার দিয়াবাড়ি এলাকায় এ এঘটনা ঘটে।আজ শুক্রবার র‌্যাব-১ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো: কামরুজ্জামান  এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে তুরাগ থানার দিয়াবাড়ি এলাকায় র‌্যাব-১ এর সদস্যরা চেকপোস্ট স্থাপন করে। এসময় দ্রুতগতির একটি মোটরসাইকেলে করে দ্ইু ব্যক্তি যাচিছলো। এসময় র‌্যাব সদস্যরা তাদেরকে থামার সিগন্যাল দেয়। তখন মোটরসাইকেলে থাকা ওই দুই যুবক র‌্যাবের সিগন্যাল অমান্য করে মোটরসাইকেলের গতি বাড়িয়ে দেয় এবং র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। এসময় আতœরক্ষার্থে র‌্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালায়। গুলিবিনিময়ের এক পর্যায়ে তারা দু’জন গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এসময় র‌্যাবের এক সদস্যও আহত হয়েছেন।
ঘটনাস্থল থেকে দু’টি বিদেশি পিস্তল, ৯ রাউন্ড গুলি, ৪টি ম্যাগজিন, ৩ হাজার ৯০পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, তিনটি মোবাইল সেট ও তাদের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি জব্দ করা হয়।
র‌্যাব -১ এর এএসপি কামরুজ্জামান বাসসকে আরও জানান, নরসিংদীর রায়পুরার ভেলুয়াচর এলাকার সুলতান মিয়ার ছেলে ইব্রাহিম খলিল (৪৫) এবং ভোলার চরফ্যাশনের বক্কারপুরের ওয়াদুদ মাতাব্বরের ছেলে ওমর ফারুক (৩৪)। তারা দু’জনই টঙ্গির দত্তপাড়ায় থাকতো। ইব্রাহিম মাদকের ডিলার ও তার সহযোগী ছিলো ওমর ফারুক।
তুরাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুরুল মোত্তাকিন বলেন, নিহত দুইজনের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
র‌্যাব জানিয়েছে, ইব্রাহিম খলিলের বিরুদ্ধে ১৫টি ও ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে টঙ্গী থানাসহ রাজধানীর বিভিন্ন থানায় ১৪টি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনসহ অন্যন্যা মামলা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

ফেসবুকে আমরা..