ময়ূর-২ লঞ্চের সহকারী মাস্টার জাকির ও গ্রীজার হৃদয় কারাগারে

বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবিতে ৩৪ জনের মৃত্যুর ঘটনায় ময়ূর-২ লঞ্চের সহকারী মাস্টার জাকির হোসেন ও গ্রীজার হৃদয়কে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
রোববার তাদেরকে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাদের কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর ঘাট নৌ থানার উপ-পরিদর্শক শহিদুল আলম। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিশকাত শুকরানা তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) আনোয়ারুল কবির বাবুল বাসসকে এ তথ্য জানিয়ে বলেন,তিন দিনের রিমান্ড শেষে জাকিরকে আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। অপরদিকে হৃদয়কেও কারাগারে আটক রাখার আবেদন করা হয়। বিচারক দু’জনকেই কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
এরআগে শুক্রবার (২৪ জুলাই) জাকিরের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিশকাত শুকরানা।
এরআগে শনিবার (২৬ জুলাই) হৃদয়কে ও বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) জাকিরকে গ্রেফতার করা হয়।
গত ২৯ জুন সকাল সাড়ে ৯টার দিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ফরাশগঞ্জ ঘাটের কাছে ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় মর্নিং বার্ড নামের ছোট একটি লঞ্চ ডুবে যায়। এতে ৩৪ জনের মৃত্যু হয়।
পরদিন দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় এ ঘটনায় মামলা করা হয়। এ মামলায় ময়ূর-২ লঞ্চের মালিকসহ ৭ জনকে আসামি করা হয়। এরমধ্যে মালিকসহ ৫ জনকে ইতোমধ্যে গ্রেফতার করা হয়। তারা কারাগারে আছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

ফেসবুকে আমরা..