স্বাস্থ্য সরঞ্জামাদি ক্রয়ের রেকর্ডপত্র চেয়ে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে দুদকের চিঠি

করোনাকালে মাস্ক-পিপিইসহ বিভিন্ন সরঞ্জামাদি ক্রয় সংক্রান্ত দুর্নীতির অনুসন্ধ্যানে বিল-ভাইচারসহ রেকর্ডপত্র চেয়ে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে চিঠি দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
আজ দুদক প্রধান কার্যালয়ের পরিচালক মীর মো. জয়নুল আবেদীন শিবলীর স্বাক্ষরিত এক জরুরি পত্রে এসব রেকর্ডপত্র চাওয়া হয়েছে।
এরআগে গত ৯ আগস্ট করোনাকালে অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ অনুসন্ধ্যানে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালের বেশকিছু নথিপত্র তলব করেছিল দুদক।
চিঠিতে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালের পরিচালকের নিকট ডা: সোহেলী পারভীন ও ডা: মামুনুর রশীদের ব্যাক ডেটে স্বাক্ষর দেওয়া বিল-ভাউচারসহ বিভিন্ন রেকর্ডপত্র চাওয়া হয়েছে।
এসব রেকর্ডপত্র আগামী ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দুদক পরিচালক মীর মো. জয়নুল আবেদীন শিবলীর নিকট সরবরাহের অনুরোধ করা হয়েছে।
দুদক সূত্রে জানা যায়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও বিভিন্ন হাসপাতালের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে কোভিড-১৯ এর চিকিৎসার জন্য নিম্নমানের মাস্ক, পিপিই ও অন্যান্য স্বাস্থ্য সরঞ্জামাদি ক্রয় ও সরবরাহ, চিকিৎসকদের হোটেলে থাকা-খাওয়ার নামে সরকারি অর্থ আত্মসাৎসহ অন্যান্যদের যোগসাজসে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতপূর্বক অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগসমূহ সুষ্ঠু অুনসন্ধানের স্বার্থে এসব রেকর্ডপত্র চাওয়া হয়েছে।
চিঠিতে চলতি বছরের মার্চ হতে আগস্ট পর্যন্ত কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় যে সমস্ত স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী (মাস্ক, পিপিই, স্যানিটাইজার ও অন্যান্য দ্রব্যাদি) এবং চিকিৎসা সরঞ্জামাদি ক্রয় করা হয়েছে তার আইটেমভিত্তিক বিবরণ, ব্যয়িত অর্থের পরিমাণ ও সরবরাহকারি প্রতিষ্ঠানের নাম-ঠিকানা, ক্রয় কমিটির তথ্য এবং বর্ণিত স্বাস্থ্য সরঞ্জামাদি ক্রয় সংক্রান্ত নথি ও নোটশীটের সত্যায়িত ফটোকপি চাওয়া হয়েছে।
স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ও স্বাস্থ্য সরঞ্জামাদি সরবরাহের জন্য বিভিন্ন সরবরাহকারি প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে কি পরিমাণ বিল পরিশোধ করা হয়েছে তার তথ্য এবং কি পরিমাণ স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ও স্বাস্থ্য সরঞ্জামাদি বর্তমানে মজুদ রয়েছে তার তথ্য চাওয়া হয়েছে।
কোভিডকালীন চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত অত্র হাসপাতালের ডাক্তার,নার্স ও সংশ্লিষ্ট কর্মমর্তা-কর্মচারীদের হোটেলে রাখার ক্ষেত্রে হোটেলসমূহের সাথে সম্পাদিত চুক্তি, হোটেলে অবস্থানকারীদের তালিকা (হোটেল ভিত্তিক), হোটেল ভাড়া ও খাবার বাবদ পরিশোধকৃত বিলের তথ্য এবং নোটশীটসহ সংশ্লিষ্ট নথির ফটোকপি দিতে বলা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

ফেসবুকে আমরা..