ব্রেকিং নিউজ :
একনেক বৈঠকে ১০ হাজার ৭শ’ কোটি টাকা ব্যয়সম্বলিত ৭টি প্রকল্প অনুমোদন করোনা নিয়ন্ত্রণে সাংহাইয়ে শত শত ফ্লাইট বাতিল বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ডিজিটাল সুবিধা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে : বাণিজ্যমন্ত্রী আইসিটি সেক্টরে একযোগে কাজ করবে বাংলাদেশ ও ভারত : আইসিটি প্রতিমন্ত্রী অন্তর্ভুক্তিমূলক জনপ্রশাসন গড়ে তুলতে হবে : ফরহাদ হোসেন শপথ নিলেন নব-নির্বাচিত সংসদ সদস্য মোহাম্মদ হাবিব হাসান ডিএনসিসি মেয়রের সাথে ভারতের রাষ্ট্রদূতের ভার্চুয়াল বৈঠক বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুনীরুজ্জামানের দাফন সম্পন্ন বঙ্গবন্ধু টি-টুয়েন্টি: মেহেদির অলরাউন্ড নৈপুণ্যে দুর্দান্ত জয়ে শুরু রাজশাহীর জাতির পিতাকে জানতে তরুণদের বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন পরিদর্শনের আহবান ডেপুটি স্পিকারের
  • আপডেট টাইম : 27/04/2020 08:46 PM
  • 82 বার পঠিত

সরকার গত ১০ বছরে ৫ লাখ ৭ হাজার ৪০ জন দরিদ্র-অসহায় মানুষকে বিনামূল্যে আইনি সহায়তা দিয়েছে।
২০০৯ সাল থেকে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আইন মন্ত্রণালয়ের অধীন জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার মাধ্যমে এ সহায়তা দেয়া হয়।
একই সময়ে সংস্থাটি ৩৫ কোটি ৩৬ লাখ ১৩ হাজার ৪২২ টাকা দরিদ্র-অসহায় মানুষকে ক্ষতিপূরণ আদায় করে দিতে সক্ষম হয়েছে।
আর্থিকভাবে অসচ্ছল, সহায় সম্বলহীন এবং বিভিন্ন আর্থ-সামাজিক কারণে বিচারপ্রাপ্তিতে অসমর্থ জনগোষ্ঠীর আইনি অধিকার নিশ্চিতে তাদেরকে আইনগত সহায়তা প্রদানের উদ্দেশ্যে ২০০০ সালে প্রণয়ন করা হয় আইনগত সহায়তা প্রদান আইন।
সংস্থাটি গত ১০ বছরে ৬৪ টি জেলা লিগ্যাল এইড অফিসের মাধ্যমে ৩ লাখ ৮৪ হাজার ৮২৩ জনকে, সুপ্রীম কোর্ট লিগ্যাল এইড অফিসের মাধ্যমে ২০ হাজার ৯২ জনকে, জাতীয় হেল্প লাইন কলসেন্টারের ১৬৪৩০ নম্বরে ফোন কলের মাধ্যমে ৮৩ হাজার ৯১৮ জনকে এবং ঢাকা ও চট্টগ্রাম শ্রমিক আইনগত সহায়তা সেলের মাধ্যমে ১৮ হাজার ২০৭ জনকে আইনগত সহায়তা দিয়েছে। একই সময়ে সংস্থাটি ১ লাখ ২৬ হাজার ৪৯২ টি লিগ্যাল এইড মামলা নিষ্পত্তি করেছে।
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হকের নির্দেশে জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার জাতীয় হেল্প লাইন কলসেন্টার (১৬৪৩০) বর্তমানে ২৪ ঘন্টা খোলা রাখা হয়েছে এবং জনগণকে আইনি পরামর্শ সেবা দেয়া হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...