ব্রেকিং নিউজ :
সবাইকে বর্তমান অবস্থানে থেকেই স্বাস্থ্য নির্দেশিকা মেনে ঈদ উদযাপনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর বায়তুল মোকাররমে ঈদের ৫টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে কাল আওয়ামী লীগ থেকে শিখুন, জনগণের পাশে থাকুন- বিএনপিসহ সব দলকে তথ্যমন্ত্রী সিলেটে ঈদ উপলক্ষে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা করোনার ভ্যাকসিন নিলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রধান ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের যুদ্ধ বন্ধের চেষ্টায় শুক্রবার নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক ভারতে একদিনে করোনায় মারা গেছে ৪ হাজার ১২০ জন করোনাকালীন রাজনৈতিক ব্লেম গেম থেকে বিরত থাকা সবার দায়িত্ব ও কর্তব্য : ওবায়দুল কাদের করোনায় আরও ৩১ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১,২৯০ আগামীকাল পবিত্র ঈদুল ফিতর
  • আপডেট টাইম : 05/04/2021 08:00 PM
  • 24 বার পঠিত

করোনা পরিস্থিতি অবনতি হওয়ায় সারাদেশের মতো চট্টগ্রামেও কড়াকড়ি লকডাউন চলছে। লকডাউন কার্যকর রাখতে চেষ্ঠা চালাচ্ছে মাঠ প্রশাসন। সোমবার ভোর ৬টা থেকেই চট্টগ্রাম নগরে শুরু হয় লকডাউন। লকডাউনে দোকান বন্ধ থাকলেও সীমিত পরিসরে ব্যাংকসহ বিভিন্ন অফিস খোলা রয়েছে। গণপরিবহন না থাকায় রাস্তায় ব্যক্তিগত গাড়ির পাশাপাশি ছিল রিকশার রাজত্ব।
চট্টগ্রাম নগরীর চার প্রবেশপথ অক্সিজেন, নতুন ব্রিজ, কাপ্তাই রাস্তার মাথা ও সিটি গেটে কড়া চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করছে পুলিশ। জরুরি প্রয়োজনে ব্যক্তিগত গাড়ি ছাড়া কোনো গণপরিবহনকেই নগরে প্রবেশ ও বের হতে দেওয়া হচ্ছে না।
চট্টগ্রাম নগরীর কর্নেলহাট, একে খান, অলংকার মোড়, নিউমার্কেট মোড় এলাকা সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, আর্থিক সঙ্গতি রক্ষার স্বার্থে লকডাউন ভাঙছেন নিন্ম আয়ের মানুষ। রাস্তায় কোনো গণপরিবহন না থাকায় অফিসে যেতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে নগরবাসীকে। ফলে রাস্তায় অফিসগামী অনেক মানুষকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। গণপরিবহন না চললেও রাস্তায় প্রচুর রিকশা রয়েছে।
নগরের রাস্তায় গণপরিবহন কমে যাওয়ায় শিল্পকারখানার শ্রমিকদের নির্দিষ্ট সময়ের আগেই গন্তব্যস্থলে রওনা হতে দেখা গেছে। জরুরি কাজের জন্য সীমিত পরিসরে সব সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত অফিস ও আদালত এবং বেসরকারি অফিস খোলা হয়েছে। বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান নিজস্ব ব্যবস্থায় কর্মীদের অফিসে আনা-নেওয়ার জন্য পরিবহনের ব্যবস্থা করেছে।
পুলিশ বিভিন্নস্থানে সাইরেন বাজিয়ে, মাইকিং করে মানুষজনকে রাস্তায় থাকতে মানা করছে। জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেট টিম নগরের বিভিন্ন স্থানে মাঠে নেমেছে। স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে রাস্তায় মানুষ কম। নগরের অলিতে গলিতে মানুষকে আড্ডা দিতে দেখা যায়। এছাড়া গণপরিবহন না থাকলেও রাস্তায় ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচল দেখা গেছে।
সকাল সাড়ে নয়টার দিকে সিটি গেট এলাকায় গাড়ির জন্য দাঁড়িয়ে থাকা বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা নুরুল করিম বলেন, আজকে লকডাউনের প্রথম দিন, অফিস বন্ধ দেয়নি, অফিসে কীভাবে যাব, তা বুঝতে পারছি না। কোম্পানি এ লকডাউনের সুযোগে বেতন আরও কমাবে। আর এদিকে গাড়ি-ঘোড়ার যে অবস্থা দেখছি, আমরা অফিস করতে গেলেই বেতনের টাকা শেষ হয়ে যাবে। কীভাবে কি করবো বুঝতে পারছি না।
নগর পুলিশের উপ কমিশনার (এসবি) মনজুর মোরশেদ বলেন, সরকারি নির্দেশনা মতে লকডাউন কার্যকরে আমাদের সদস্যরা টহল, মাইকিং ও সচেতনতা কার্যক্রম চালাচ্ছে। এছাড়া মোড়ে মোড়ে তল্লাশি, নগরের প্রবেশমুখে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। আমরা মানুষকে বুঝিয়ে লকডাউন কার্যকরের চেষ্টা করছি।
তিনি বলেন, গণপরিবহন না চললেও সড়কে প্রচুর পরিমাণে ব্যক্তিগত গাড়ি, মোটরসাইকেল ও রিকশা চলছে। তবে আমরা সবার স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে জোর দিচ্ছি।
চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন থেকে জানানো হয়েছে, লকডাউন কার্যকরে নেওয়া হয়েছে নানা পদক্ষেপ, এ জন্য নগরজুড়ে মাঠে আছেন ১০ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এরমধ্যে নগরীর তিনটি প্রবেশ পথে বিআরটিএর ম্যাজিস্ট্রেটরা দায়িত্ব পালন করছেন। লকডাউন অমান্য করলে ব্যবস্থা নিচ্ছেন তারা। এবারের লকডাউনে রেড ক্রিসেন্টকেও যুক্ত করা হয়েছে।
জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমান জানান, নগরের অভ্যন্তরীণ সড়কে চলছে না কোনো গণপরিবহন। বন্ধ আন্তঃজেলা বাস চলাচল। বিমান ও রেল চলাচলও বন্ধ। বন্ধ রয়েছে দোকান-মার্কেট। তবে জরুরি ও নিত্যপণ্যের দোকান খোলা রয়েছে যথারীতি। লকডাউন মানতে মাইকিং চলছে বিভিন্ন এলাকায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...