ব্রেকিং নিউজ :
গত ২৪ ঘন্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত নতুন রোগী ভর্তি ২৪২ জন ‘মুজিব আমার পিতা’ অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্র উদ্বোধন ২৮ সেপ্টেম্বর পশ্চিম তীরে হামাস-ইসরায়েল সংঘর্ষে ৪ ফিলিস্তিন নিহত মহাসড়ক বিল, ২০২১ এর রিপোর্ট চূড়ান্ত করার সুপারিশ বিএনপি দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে জবাব দেওয়া হবে : ওবায়দুল কাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুতে আইসিআরসি প্রধানের আলোচনা বিএনপির ঐক্যের শক্তি হাওয়ায় মিলিয়ে গেছে : তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ভোক্তা স্বার্থ সুরক্ষায় ই-কমার্সকে সুশৃঙ্খল করার কাজ চলছে : বাণিজ্যমন্ত্রী 'বাংলাদেশী ইমিগ্রান্ট ডে' রেজুলেশন পাশ নিঃসন্দেহে একটি বড় ঘটনা : পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংগ্রামী জীবনের ইতিহাস নবীন প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে : স্পিকার
  • আপডেট টাইম : 02/08/2021 10:08 PM
  • 42 বার পঠিত

 সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে দেশের মোট ৭৩টি গণগ্রন্থাগারকে শিগগিরই ডিজিটালাইজ করা হচ্ছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ এ উদ্যোগ নিয়েছে।  আজ সোমবার আইসিটি বিভাগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। এতে বলা হয়েছে, নতুন প্রজন্মের চাহিদা বিবেচনা করে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার কাজে লাগিয়ে জ্ঞানসমৃদ্ধ সমাজ বিনির্মাণে ৭১টি সরকারি ও ২টি বেসরকারি গণগ্রন্থাগারে আইসিটি সফটওয়্যার ও  সময়োপযোগি যন্ত্রপাতি  স্থাপনের মাধ্যমে আধুনিকায়ন করাই এ উদ্যোগের মূল লক্ষ্য।
এছাড়াও তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের  লক্ষ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে, মানসম্পন্ন  অন-লাইন সেবা কার্যক্রম সম্প্রসারণের মাধ্যমে এসব গণগন্থাগারকে ই-লাইব্রেরীতে পরিণত করা।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ৭৩টি গণগ্রন্থাগারকে ডিজিটালাইজড করার উদ্যোগ বাস্তবায়নে রোববার রাতে ভার্চ্যূয়ালি আইসিটি বিভাগ ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সমন্বিত এক পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে এ সভায় সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব, গ্রন্থগার অধিদফতরের মহাপরিচালক আবু বক্কর সিদ্দিক,বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের পরিচালক (প্রশিক্ষণ) মোঃ এনামুল কবিরসহ তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগ এবং সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সংস্থার কর্মকর্তারা জুম-অনলাইনে এ সভায় সংযুক্ত ছিলেন।
পযালোচনা সভায় আইসিটি বিবাগের এ উদ্যোগ বাস্তবায়নের রূপরেখা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনার পর জানানো হয়, এসব লাইব্রেরীর প্রতিটির জন্য স্বতন্ত্র লাইব্রেরী ব্যবস্থাপনার ডিজিটাল পদ্ধতি সংযোজিত হবে, যেখানে থরে-থরে সাজানো থাকবে ই-বুক। থাকবে, স্বতন্ত্র শিশু ও মুজিব কর্ণার। প্রতিটি ই-লাইব্রেরী এমন ভাবে সাজানো হবে, যাতে করে পিসি ছাড়াও সব ধরনের মোবাইল থেকেই স্বাচ্ছন্দ্যে গ্রন্থাগারে ভার্চ্যূয়াল প্রবেশের মাধ্যমে পছন্দের বই পাঠক পড়তে পারেন ।
এ ছাড়াও সভায় জানানো হয়, ল্যান নেটওয়ার্কে সংযুক্ত করে লাইব্রেরীগুলোকে ডিজিটাল রূপান্তরে  তারহীন প্রযুক্তির ইন্টারনেট সংযোগ, আইপিফোন, বিভাগীয় গ্রন্থাগারগুলোর জন্য আরএফআইডি প্রযুক্তির ব্যবস্থা করবে আইসিটি বিভাগ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...