ব্রেকিং নিউজ :
দিনাজপুরে হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব হলে ‘ফার্স্ট এইড কর্ণার’ চালু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মিতসুবিশি কর্পোরেশন বৃত্তি প্রবর্তন বিএনপি ভুল রাজনীতির কারণে এখন চরম দুর্দিনের ছায়ায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে : ওবায়দুল কাদের অর্ধেক জনবল দিয়ে ব্যাংক চালাতে হবে ‘বাংলাদেশ-ওমান বিজনেস ফোরাম’ গঠনে আগ্রহী ওমানের দূত মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৮তম জন্মবার্ষিকী আগামীকাল পীরগঞ্জে স্পিকারের পক্ষে শীতবস্ত্র বিতরণ ইসি গঠনের দায়িত্ব মির্জা ফখরুলকে দিলেই কেবল বিএনপি খুশি হবে : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী বসিলায় ট্রাক টার্মিনাল উচ্ছেদ করে লাউতলা খাল খনন শুরু প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ বিলের রিপোর্ট সংসদে উপস্থাপনের সুপারিশ
  • আপডেট টাইম : 16/07/2019 12:04 AM
  • 435 বার পঠিত

নিউজ ডেস্ক:-বর্তমান সরকারের মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণ হচ্ছে আগামী শনিবার। সরকারের মেয়াদের সাত মাসের মাথায় একজন প্রতিমন্ত্রী পদোন্নতি পেয়ে মন্ত্রী হচ্ছেন, সেই সঙ্গে সরকারে যুক্ত হচ্ছেন নতুন একজন প্রতিমন্ত্রী।
আজ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে জবাবে এ কথা জানিয়েছেন।
‘মন্ত্রিসভা সম্প্রসারিত হচ্ছে বলে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রস্তুতি রয়েছে কি না -জানতে চাইলে শফিউল আলম বলেন, ‘আমরা প্রস্তুত আছি। শনিবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠিত হবে।’
তবে কারা কারা শপথ নেবেন সে বিষয়ে কিছু জানাননি মন্ত্রিপরিষদ সচিব।
২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর গত ৭ জানুয়ারি টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগ। ৪৬ সদস্যের ওই মন্ত্রিসভায় ২৪ মন্ত্রী, ১৯ প্রতিমন্ত্রী ও তিনজন উপমন্ত্রী রয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে ছয় মন্ত্রণালয় রাখা হয়।
পরে গত ১৯ মে মন্ত্রিসভা পুনর্বিন্যাস করা হয়। তখন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী করা হয়। এছাড়া ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারকে একই মন্ত্রণালয়ের ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী করা হয়। এ মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের দায়িত্ব দেয়া হয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে।
একই সঙ্গে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের অধীন স্থানীয় সরকার বিভাগের মন্ত্রী করা হয় তাজুল ইসলামকে। তাকে আগে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও স্বপন ভট্টাচার্য্যকে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। একই মন্ত্রণালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয় স্বপন ভট্টাচার্য্যকে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...