ব্রেকিং নিউজ :
টিকার আওতায় এসেছে দেশের ১ কোটি ২৫ লাখ ৯২ হাজার ৭৪৯ জন মানুষ টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে সড়ক দুর্ঘটনায় স্বামী-স্ত্রী নিহত যুক্তরাষ্ট্রের টিকা উৎপাদন কোম্পানির সঙ্গে অংশীদারিত্ব চান সালমান এফ রহমান শিক্ষাঙ্গনে সন্ত্রাস-নৈরাজ্য ছিল বিএনপি'র আমলেই : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী আরদাশীর কবির বিইএফের নতুন সভাপতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফলে স্নাতকে ভর্তির আবেদন শুরু চট্টগ্রামে করোনায় ১৭ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত নতুন ৯১৫ কক্সবাজারে পাহাড় ধসে আরো ৬ ব্যক্তির মৃত্যু বিদেশ ফেরত কর্মীদের কর্মসৃজনে ৪২৭ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় ২৩৭ জনের মৃত্যু : নতুন আক্রান্ত ১৬,২৩০ জন
  • আপডেট টাইম : 14/07/2021 07:09 PM
  • 14 বার পঠিত

গাজীপুরের কালীগঞ্জে স্ত্রী হত্যার অভিযোগে মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত স্বামী মো. আবদুল আউয়াল খানকে খালাস দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।
আউয়ালের আপিল মঞ্জুর করে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ছয় বিচারপতির ভার্চুয়াল আপিল বিভাগ বেঞ্চ সংখ্যাগরিষ্ঠ মতের ভিত্তিতে আজ এ রায় দেন।
আদালতে আসামিপক্ষে ছিলেন রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী হেলাল উদ্দিন মোল্লা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন এটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন ও ডেপুটি এটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।
২০০৭ সালের ১৬ জুলাই ভোর ৪টার দিকে আউয়ালের স্ত্রী নার্গিস খুন হন। এ ঘটনায় নার্গিসের বাবা অজ্ঞাত পরিচয়দের আসামি করে কালীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় পুলিশ স্বামী আউয়ালকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে নেয়। পরে পুলিশ তাকে গ্রেফতার দেখায়।
বিচার শেষে ২০০৮ সালের ২০ আগস্ট গাজীপুর জেলা ও দায়রা জজ  আদালত তাকে মৃত্যুদন্ড দিয়ে রায় দেন। পরে মৃত্যুদন্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে আসে। পাশাপাশি আপিল করেন আসামি আউয়াল। শুনানি শেষে ২০১৪ সালে হাইকোর্ট মৃত্যুদন্ড বহাল রাখেন। পরে জেল আপিল করেন আউয়াল।
এডভোকেট হেলাল উদ্দিন মোল্লা গণমাধ্যমকে জানান, এ হত্যার ঘটনায় কোনো প্রত্যক্ষ সাক্ষী ছিল না। স্বামীর কোনো স্বীকারোক্তিও ছিল না। তাছাড়া ঘটনার দিন স্বামী বাসায় ছিলেন না। তিনি ব্যবসার কাজে বাজারে ছিলেন। শুনানি শেষে আজ আপিল বিভাগ আউয়াল খানকে খালাস দিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...