ব্রেকিং নিউজ :
পাবনার আটঘরিয়ায় নসিমন উল্টে চালকের মৃত্যু দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৬ জন করোনায় আক্রান্ত বেসরকারি স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানের ফি নির্ধারণ করা হচ্ছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী শিশুদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ গড়ে তুলুন : রাষ্ট্রপতি অঙ্গদানকারী সারাহ ইসলামের মৃত্যু নাই : বিএসএমএমইউ উপাচার্য নদী ভাঙ্গনে বাস্তুচ্যুতদের টেকসই জীবিকার কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে কাজ করছে সরকার : পরিবেশমন্ত্রী স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষকদের ভূমিকা অপরিসীম : জাহিদ ফারুক হেলমেট ছুড়ে মারায় শান্তকে তিরস্কার করলো বিসিবি বিপদে পুলিশকে পাশে পেয়ে মানুষ যেন স্বস্তি বোধ করে তা নিশ্চিত করুন : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করার আহ্বান এনামুল হক শামীমের
  • আপডেট টাইম : 13/10/2021 07:15 PM
  • 5602 বার পঠিত

তীরে এসে তরী ডুবল বাংলাদেশের। দীর্ঘ ১৬ বছর পর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে খেলার যে স্বপ্ন বাংলাদেশ দেখেছিল আজ নেপালের বিপক্ষে অঘোষিত সেমি-ফাইনালের শুরুতে গোল করে সেই স্বপ্ন পুরনের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিয়েছিলেন সুমন রেজা। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না। শেষ বাঁশি বাজার মাত্র দুই মিনিট আগে একটি গোল হজম করে বেঙ্গল টাইগাররা। ডিফেন্ডারদের ভুলে পাওয়া পেনাল্টি থেকে গোলটি পরিশোধ করে দেয় নেপাল।
এই ড্রয়ে পয়েন্ট টেবিলে আগেই বাংলাদেশকে ছাড়িয়ে যাওয়া নেপাল সবার আগে পৌঁছে গেল আসরের ফাইনালে। কারণ এই জয়ের ফলে তিন ম্যাচ থেকে ৭ পয়েন্ট সংগৃহীত হয়েছে নেপালের। আর সমান সংখ্যক ম্যাচ থেকে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ পয়েন্ট। 
বাঁচা মরার এই লড়াইয়ে জয়ের কোন বিকল্প ছিলনা বাংলাদেশের সামনে। অপরদিকে ড্র করলেই ফাইনালে খেলার টিকিট নেপালীদের হাতে। এমন এক সমীকরণ নিয়ে আজ মাঠে নেমে শুরুতেই এগিয়ে যায় বাংলাদেশ।
মালদ্বীপের রাজধানী মালের জাতীয় ফুটবল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচের নবম মিনিটে বক্সের কিছুটা বাইরে থেকে অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়ার নেয়া ফ্রি কিকের ক্রসের বল গোল বক্সের সামনে থাকা সুমন রেজা লাফিয়ে উঠে দর্শনীয় হেডে নেপালি জালে জড়িয়ে দিলে উৎসব শুরু হয় লাল সবুজ শিবিরে। 
এর পরপর গোল পরিশোধের জন্য মরিয়া হয়ে উঠে নেপাল। ১৪ মিনিটে চমৎকার সুযোগও পেয়ে যায় হিমালয় কন্যারা। গৌতম শ্রেষ্টার পাসের বলটি দারুন পজিশনে থাকা রোহিত চাঁদ জালে জড়াতে ব্যর্থ হলে রক্ষা পায় বাংলাদেশ। 
প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে ফের গোল পরিশোধের সুযোগ হাতছাড়া করে নেপাল। রোহিতের ক্রসের বলে আয়ুশ হেড করলেও সেটি মাঠের বাইরে চলে যায়। বিরতির পর প্রতিআক্রমন থেকে লিড বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিল বেঙ্গল টাইগাররা। বল নিয়ে নেপালি গোলবক্সের ভেতর ঢুকে যাওয়ার পর সুমন রেজার ডান পায়ের দুর্বল শট দক্ষতার সঙ্গে প্রতিহত করেন নেপালী গোল রক্ষক।    
গোল পরিশোধে মরিয়া নেপাল ফের আক্রমনে মনোযোগ দেয়। ৬০ মিনিটে বক্সের ভেতর থেকেই দারুন এক ভলি করেন অঞ্জন বিস্তা। তবে সেটি গোলপোস্টকে পাশ কাটিয়ে বাইরে চলে যায়।
তিন মিনিট পর গোলের সুযোগ পেয়ে যায় বাংলাদেশ। সাদের ফ্রি কিকের ক্রসে পোস্টের সামনে থাকা ইব্রাহিম হেড নিলেও সেটি ক্রসবারের উপর দিয়ে বাইরে চলে যায়।      
কিন্তু শেষ বাঁশি বাজার মাত্র দুই মিনিট আগে পেনাল্টি থেকে গোলটি পরিশোধ করে দেয় নেপাল। ৮৮ মিনিটে পেনাল্টি থেকে লক্ষ্য ভেদ করেন অঞ্জন বিস্তা। এর আগে ৭৮ মিনিটে অবশ্য লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন বাংলাদেশ দলের নির্ভরযোগ্য গোল রক্ষক জিকো। বক্সের বাইরে এসে প্রতিপক্ষের আক্রমন হাত দিয়ে রুখে দেয়ার অপরাধে বাংলাদেশ গোল রক্ষককে সরাসরি লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দেন দায়িত্বরত উজবেকিস্তানের রেফারি আর আখরোল। এতেই ১০জনের দলে পরিণত হয় বেঙ্গল টাইগাররা। 
বাংলাদেশ দল: তপু বর্মন, জামাল ভুঁইয়া, সুমন রেজা, বিপলু আহমেদ, বিশ্বনাথ ঘোষ, আনিসুর রহমান, তারিক রায়হান কাজী, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, টুটুল হোসেন বাদশাহ, রাকিব হোসেন ও সাদ উদ্দিন।   

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...