ব্রেকিং নিউজ :
সোশ্যাল মিডিয়ায় আওয়ামী লীগ বিরোধী অপপ্রচারের যথাযথ জবাব দিতে হবে : ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রাইজ ফর ক্রিয়েটিভ ইকোনমি এর মনোনয়ন আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে জাপানি রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ ভুয়া ডাক্তারদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনায় হাইকোর্টের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী কাল কক্সবাজার জনসভায় বক্তৃতা দেবেন পরিবেশবান্ধব শিল্পায়ন বাস্তবায়নে কাজ করছে বেসরকারি খাত : এফবিসিসিআই সভাপতি সারাদেশের মতো সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেও সরকার নিরাপত্তা দেবে : তথ্যমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী দিবসে সম্প্রীতি বাংলাদেশ’র শুভেচ্ছা বিএনপি’র সমাবেশের স্থান নিয়ে সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে : ওবায়দুল কাদের যশোর মুক্তদিবস পালিত
  • আপডেট টাইম : 15/11/2022 09:11 PM
  • 18 বার পঠিত

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী জনাব মোস্তফা জব্বার বলেছেন, ডিজিটাল শিল্প বিপ্লব  বিদ্যমান শিক্ষা ব্যবস্থাকে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখী দাঁড় করিয়েছে। মানব সভ্যতা  একটি নতুন যুগে প্রবেশ করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন  চতুর্থ নয়, পঞ্চম শিল্প বিপ্লবের উপযোগী শিক্ষা ব্যবস্থার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সরকার, একাডেমিয়া ইন্ডাস্ট্রিজ ও প্রযুক্তিবিদদের সমন্বিত উদ্যোগে এগিয়ে আসতে হবে। মোস্তফা জব্বার আজ রাজধানীর হোটেল রেডিসনে বিশ্বের বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের শিক্ষানেতাদের অন্যতম শীর্ষ সংস্থা এসোসিয়েশন অব ইউনিভার্সিটিজ অব এশিয়া প্যাসিকি (এইউএপি)’র  ১৫ তম সাধারণ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। 
মন্ত্রী বিশ্বের শিক্ষানেতাদের লাগসই শিক্ষাব্যবস্থা গড়ে তুলতে অগ্রণী ভূমিকা গ্রহণে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ইউরোপীয়রা চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের কথা বলে। সেটি একটি যান্ত্রিক বিপ্লব। তাদের মানুষ নাই, তাই যন্ত্র দিয়ে মানুষের অভাব পূরণ করতে চায়। আমরা যন্ত্র চাই, তবে মানুষকে বাদ দিয়ে নয়। আমরা তাই পঞ্চম শিল্প বিপ্লবের পথে হাঁটছি। ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লব যুগে  তথ্য প্রযুক্তি এবং গুণগত শিক্ষার মধ্যে সমন্বয়’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলসহ বিশ্বের ১০টি দেশের ৩২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাবিদরা এই সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন।
এইউএপির  সভাপতি  ড. পিটার লি লওরেলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি, এমপি ভিডিও বার্তা প্রদান করেন।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ভারতের কলিঙ্গ ইন্সটিটিউট অব ইন্ডাস্ট্রিয়াল সায়েন্সের প্রতিষ্ঠাতা ও ভারতীয় লোক সভার সদস্য প্রফেসর ড. অচৎ সামন্ত, এসোসিয়েশন অফ ইউনিভার্সিটিজ অফ এশিয়া প্যাসিফিক (এইউএপি),র প্রথম সহ-সভাপতি ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান, এসোসিয়েশন অফ ইউনিভার্সিটিজ অফ এশিয়া প্যাসিফিক (এইউএপি)’র মহাসচিব প্রফেসর ড. রিকার্ডো পি পামা। 
অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইন্টারন্যাশনাল এসোসিয়েসন অব ইউনিভার্সিটির প্রেসিডেন্টস ড. ফার্নান্দো লিয়েন গ্রেসিয়া ।
ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, আগামী দিনের পৃথিবীর জন্য উপযোগী  শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তুলতে বিশ্বের শিক্ষানেতাদের ভূমিকা অপরিসীম। তিনি বলেন, এই অঞ্চলের মানুষের মেধা ও উদ্ভাবনী শক্তি তুলনাহীন। তাদেরকে যথাযথ পরিচর্যা করতে পারলে প্রযুক্তির চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা সহজতর হবে। এই সম্মেলন শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তর দুই বছর করোনা মহামারি পরবর্তী সময়ে উচ্চ শিক্ষার  ক্ষেত্রে উদ্বেগের এবং সমাধানের ক্ষেত্রে অবদান রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
এইউএপির লক্ষ্য হলো সংস্থাটির সদস্য বিশ্ববিদ্যালয় মধ্যে আন্ত:সম্পর্ক ও সহযোগিতার সুহৃদ সম্পর্ক বৃদ্ধি করে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বিশ্ববিদ্যালয়সমুহের সর্বোপরি উন্নয়নের জন্য একটি আধুনিক ও কার্যকরী মঞ্চ তৈরি করা। 
মহামারি পরবর্তী সময়ে ঢাকায় আয়োজিত এই ১৫তম সম্মেলনে শিক্ষানেতারা তথ্য প্রযুক্তি ও মানসম্পন্ন শিক্ষার মধ্যে সমন্বয়ের উদ্দেশ্যে আলোচনা করেন । এছাড়া করোনা পরবর্তীতে কর্মসংস্থানের জন্য অনলাইন থেকে মিশ্র শিক্ষা ব্যবস্থার উদ্ভাবন, কর্মসংস্থানের ভিত্তিতে ফলাফল নির্ভর শিক্ষার জন্য পরীক্ষামূলক ও ব্যবহারিক শিক্ষার প্রচলন, প্রকল্পভিত্তিক শিক্ষা গ্রহণ ও শিক্ষা প্রদান, উদ্ভাবন-ইনকিউবেশন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন,আন্তর্জাতিক সহযোগিতা ও গতিশীলতা এবং অনুষদের উন্নয়ন ও গবেষণা প্রয়োজন বলে আলোচকরা উল্লেখ করেন।
পরে মন্ত্রী ডিজিটাল যন্ত্রের মাধ্যমে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...